প্রেমিকের মন খারাপ থাকলে কী করবেন?

দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্য আমরা এখন এমন একটি যুগে পৌঁছেছি যেখানে পুরুষেরা, যাদের কি না হওয়ার কথা গাম্ভীর্যের প্রতিমূর্তি, তারাও নারীদের মত অভিমান এর আঁচল পরছে। আপনার সাথে প্রণয়জনিত সম্পর্কে আসা যার সাত জনমের সৌভাগ্য, সে কেন এবং কিভাবে আপনার উপর রাগ করতে পারে তা বোধগম্য না হওয়ারই কথা।

তবে কিছু সহজ পদ্ধতি অবলম্বনের মাধ্যমে খুব সহজেই আপনি আপনার প্রেমিকের মন থেকে এসব কাপুরুষোচিত আচার আচরণ দূর করতে পারেন।

১) তাকে বোঝান যে তাকে ছাড়াও আপনার দিব্যি চলে

আপনার প্রেমিককে বুঝতে হবে যে আপনি একটু জোরে হাঁচি দিলেও ৪টি ছেলে হাজির হয়ে আপনাকে টিস্যু পেপার এগিয়ে দিবে।

সে যদি তার এই প্রহসনমূলক অভিমান না ছাড়ে তাহলে আপনি খুব সহজেই আপনার প্রতিটা ডিপিতে লাইক ছড়ানো ‘একাকী শামসুদ্দিন’, বা “পাগলু করে দিলি ☺” কমেন্ট করা ‘Obxcurez Akash’ এর কাঁধে মাথা রাখতে পারেন। এজন্য অতি সত্বর আপনার প্রোফাইল পিকচার পরিবর্তন করুন। আর তার সাথে দুই প্যারা লম্বা, হালকা বিষন্নতার ছোঁয়া সহ গভীর ফিলোসফিকাল ক্যাপশন দিতে ভুলবেন না।

২) বিভিন্ন ফানি পোস্টে তাকে ট্যাগ করুন

দুটি জিনিসের প্রতি সকল ছেলেরই দুর্বলতা আছে। বয়স্ক মহিলা এবং cool grils। যেহেতু প্রথমটির ব্যবস্থা করা সম্ভব নয় সেহেতু আপনি তাকে মনে করিয়ে দিতে পারেন কতটা dank এবং epic আপনি। আপনার প্রেমিক LAD Bible বা এসব যত হাবিজাবি শেয়ার করে সেগুলো ঘেটে আসুন। সেখান থেকে কতগুলো পোস্টে তাকে ট্যাগ করুন। হাসির দমক থামতে না পেরে তার অভিমান ভাঙতে বাধ্য।

একটু হালকা দুষ্টু পোস্টেও তাকে উইঙ্কি ফেস স্মাইলি দিয়ে ট্যাগ করতে পারেন তবে সেক্ষেত্রে সাবধানতা অবলম্বনীয়। এসব ব্যাপারে তারা একবার লাই পেয়ে গেলে অদূরেই “সেন্ড নুডস” টেক্সটে ভেসে যেতে পারে আপনার ইনবক্স, কারন সবাই জানে পুরূষ মানুষ মাত্রই চারিত্রিক ভাবে দুর্বল। আপনি সেটা হাফিংটনপোস্ট আর বাজফিড এ পড়েছেন। এসব কোনো কিছুতেই কাজ না হলে তাকে কটাক্ষ করে কিছু ভার্জিন রেডিও লেবানন পোস্ট শেয়ার দিতে পারেন বা একটি সূক্ষ্ম আক্রমনাত্মক রচনা লিখতে পারেন। এতে করে একাকী শামসুদ্দিন টাইপের মানুষের আপনার প্রতি সমবেদনা জাগ্রত হবে এবং আপনি আপনার অকৃতজ্ঞ প্রেমিকটি কে শীঘ্রই ছেড়ে চলে যেতে পারবেন।

৩) তাকে আদুরে নামে ডাকুন

একজন প্রেমিকের কাছে সব থেকে গর্বের মুহূর্ত হল যখন তার প্রেমিকা তাকে আদর করে “হাবি”, “বে”, “রায়ান গসলিং”, “মাফিন”, “শুয়োরের বাচ্চা”, “লুইচ্চা শালা” ইত্যাদী বলে ডাকে। এগুলো শোনামাত্র তার হৃদয় গলতে বাধ্য যেভাবে মাখন গলে যায় ১০০০ ডিগ্রি গ্লোয়িং নাইফের সংস্পর্শে। তাই এখনি তাকে টেক্সট করতে বসে যান বা ফোন করে শুনিয়ে দিন সেই মিষ্টি ডাকগুলো।

৪) তার পরিবারকে অপহরণ করুন

সব ছেলেরাই তাদের পরিবারের প্রতি কতগুলো দায়িত্ব পালন করতে বাধ্য। তাই আপনার প্রেমিকের রাগ ভাঙ্গানোর একটি সুন্দর ও সংক্ষিপ্ত সমাধান হচ্ছে তার পরিবারকে অপহরণ করে নিয়ে যান। ভিডিও কল করে জানিয়ে দিন তাকে সে যদি এখনি তার রাগ এর নাটক শেষ করে আপনাকে পিট গ্রিলে খেতে না নিয়ে যায় তবে আপনি তাকে পরিবারহারা করতে বাধ্য হবেন। এ পদ্ধতি ব্যাবহারের আরেকটি সুবিধা হচ্ছে এতে আপনার প্রেমিকের পরিবারের সাথে আপনার চেনাজানাও হয়ে যাবে যা একটি সুন্দর পারিবারিক সম্পর্কের সূচনা করবে।

আসলে ছেলে মানুষ হচ্ছে মাছির মতো। কোথাও মিষ্টি দেখলেই হাজির হয়। আপনার প্রেমিকের মন খারাপ হলে যদি নিজের মাধুর্য দিয়ে তাকে  আকর্ষণ না করতে পারেন, একাকী শামসুদ্দীন ঠিকই আপনাকে অনেক গুরুত্ব দিবে। তাই আপনার প্রেমিক যাই করুক, বেশি চিন্তিত হবেন না। দিনের শেষে আপনিই সুখী থাকবেন।

Cover design by TehMsPaint.

Comments

comments

Share this post on social media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *